বাংলায় সর্বপ্রথম, সর্ববৃহৎ ও সর্বাধিক জনপ্রিয় প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক ও সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন একদম বিনামূল্যে এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন। রেজিস্ট্রেশান না করেই অংশগ্রহণ করতে পারবেন তবে, সর্বোচ্চ সুবিধার জন্য বিনামূল্যে রেজিস্ট্রেশান করুন!

> বাংলা ভাষায় সর্বপ্রথম সম্পূর্ণ প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক এবং সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন।

Welcome to Helpful Hub, where you can ask questions and receive answers from other members of the community.

14.6k টি প্রশ্ন

16.2k টি উত্তর

5.7k টি মন্তব্য

5.9k জন নিবন্ধিত

0 টি ভোট
438 বার প্রদর্শিত
"ধর্ম ও বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Md.mahfuzul islam litu
সম্পাদিত করেছেন

2 উত্তর

+1 টি ভোট
নামাজে সূরা ফাতিহার পর যেকোনো সূরা পড়া যাবে কিন্তু সেক্ষেত্রে সুরাগুলো ধারাবাহিকতা রক্ষা করে পড়তে হবে কিনা তা নিয়ে ইমামগণের ভিন্ন সমাধান আছে।

ইমাম আবু হানিফা (রহঃ) এর সিদ্ধান্ত হল- পবিত্র কুরআনে সুরাগুলো যে ধারাবাহিকতায় আছে তা রক্ষা করা ওয়াজিব ফরজ এবং ওয়াজিব নামাজে অর্থাৎ একজন নামাজী প্রথম রাক্বাতে ফাতিহার পরে সূরা দোহা পড়ল তাহলে তাকে পরের রাকাতে দোহার পরবর্তী কোনো সূরা পড়তে হবে (যেটা তার জানা আছে), সূরা দোহার আগের সূরা পড়া যাবে না, যদি কেউ ইচ্ছাকৃতভাবে এরকম ভুল করে তাহলে তাকে সেই নামাজ আবার আদায় করতে হবে।

অন্যদিকে অন্য কয়েকজন ইমামের মতে এই ধারাবাহিকতা রক্ষা করা জরুরি নয়।

দুটো সমাধানই সঠিক, যে ইমাম আবু হানিফা (রহঃ) এর অনুসরণ করতে চান তাকে প্রথম সমাধান অনুসরণ করতে হবে আর যে অন্য ইমাম যিনি ভিন্ন সমাধান দিয়েছেন তাকে অনুসরণ করতে চান সেই ব্যক্তিকে দ্বিতীয় সমাধান অনুসরণ করতে হবে। এখানে কোনো ইমামের সিদ্ধান্তকে ভুল বলার বিন্দুমাত্র সুযোগ কারোর নেই।

 

 

Signature:

"সৎ কাজ করার চেয়ে সৎ সঙ্গ অধিক উত্তম।"
উত্তর প্রদান করেছেন Expert Senior User (6.3k পয়েন্ট)
0 টি ভোট

জবাব:

এক. মূলতঃ তারতিব তিন প্রকার–

ক) কোরআনের শব্দসমূহের তারতিব অর্থাৎ,কোরআনের শব্দসমূহ যেভাবে আছে সেভাবে রাখা; আগ-পর না করা।

খ) আয়াতসমূহের তারতিব অর্থাৎ,আয়াতসমূহ আগ-পর না করা।
যেহেতু এই দুই প্রকারের তারতিব স্বয়ং রাসূলুল্লাহ ﷺ সরাসরি ওহীর মাধ্যম পেয়েছিলেন এবং সাহাবায়ে কেরামকে বাতলে দিয়েছিলেন, তাই এক্ষেত্রে ইজতিহাদের কোন সুযোগ নেই; বরং ইচ্ছাকৃতভাবে এই দুই প্রকারের তারতিব বিশেষত নামাজে লঙ্ঘন করা হারাম; রক্ষা করা ওয়াজিব। এ ব্যাপারে কারো দ্বিমত নেই। (আল-ইতক্কান ১/১৭৫ মানাহিলুল ইরফান ১/২৮২,২৮৩)

গ) সূরাসমূহের তারতিব। এটি লঙ্ঘন করা হারাম নয় তবে সাহাবায়ে কেরামের অনুসৃত-পদ্ধতি পরিপন্থী। কেননা এটা সত্য যে, সূরাসমূহের তারতিবের ব্যাপারে কিছু সূরার ক্ষেত্রে রাসূলুল্লাহ ﷺ এর সরাসরি দিক-নির্দেশনা পাওয়া যায়। আবার কিছু সূরার  ক্ষেত্রে পাওয়া যায় না। যার ফলে সাহাবায়ে কেরামের কাছে বিদ্যমান লিখিত-কোরআনের ‘সূরাসমূহের তারতিবে’ (শব্দ ও আয়াতসমূহের নয়) ভিন্নতা ছিল। যেমন আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ রাযি. এর তারতিব (ধারাক্রম), উবাই ইবনে কাব রাযি. এর তারতিব উসমান রাযি. এর কর্তৃক সংকলিত কোরআনের তারতিব থেকে আলাদা ছিল। তবে উসমান রাযি. কর্তৃক সংকলিত কোরআন মাজীদের তারতিবই সাহাবায়ে কেরামের কাছে সর্বশেষ সবচেয়ে বেশি সমাদৃত হয়েছিল। যে তারতিবের বিরোধিতা ওই সব সাহাবাও করেন নি, যাদের কাছে ভিন্ন তারতিব ছিল। আর এই তারতিবই বর্তমান মুসলিম উম্মাহর কাছে বিদ্যমান। এ কারণেই ওলামায়েকেরাম বলেন, সূরাসমূহের বর্তমান এই তারতিব রক্ষা না করা করা হারাম নয় তবে সাহাবায়ে কেরামের অনুসৃত-পদ্ধতি পরিপন্থী বিধায় মাকরূহ। (আল মাদখাল ফী দিরাসাতিল কোরআন ৩২৬,৩২৭)
দুই. প্রিয় বোন, সূরাসমূহের এই তারতিব রক্ষা করার  প্রয়োজনীয়তা  নফল নামাজের ক্ষেত্রে নেই। কেননা হাদিসে আমরা পাই, হুযাইফা রাযি. একবার রাসূলুল্লাহ ﷺ এর পিছে তাহাজ্জুদ আদায় করেছিলেন তখন রাসূলুল্লাহ ﷺ প্রথম সূরা বাকারা , তারপর সূরা নিসা , তারপর সূরা আলে ইমরান তিলাওয়াত করেছিলেন । (মুসলিম, কিতাবুস সালাত ১৬৯৭)
বলা বাহুল্য, তাহাজ্জুদ নফলশ্রেণীর নামাজ। যেখানে সূরার বর্তমান তারতিব মানা হয় নি। অপর দিকে রাসূলুল্লাহ ﷺ কোন ফরয নামাজে এরূপ করেছেন বলে প্রমাণ পাওয়া যায় না। সুতরাং এই তারতিব রক্ষা করার  প্রয়োজনীয়তা ফরয নামাজের ক্ষেত্রে; নফল নামাজের ক্ষেত্রে নয়।

উত্তর দিয়েছেন
মাওলানা উমায়ের কোব্বাদী নকশবন্দী

Quranerjyoti.com

পূর্বে উত্তর প্রদান করেছেন New User (3 পয়েন্ট)

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি ভোট
3 টি উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
+1 টি ভোট
4 টি উত্তর

 

(হেল্পফুল হাব এ রয়েছে এক বিশাল প্রশ্নোত্তর ভান্ডার। তাই নতুন প্রশ্ন করার পূর্বে একটু সার্চ করে খুঁজে দেখুন নিচের বক্স থেকে)

(হেল্পফুল হাব সকলের জন্য উন্মুক্ত তাই এখানে প্রকাশিত প্রশ্নোত্তর, মন্তব্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর)

...