বাংলায় সর্বপ্রথম, সর্ববৃহৎ ও সর্বাধিক জনপ্রিয় প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক ও সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন একদম বিনামূল্যে এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন। রেজিস্ট্রেশান না করেই অংশগ্রহণ করতে পারবেন তবে, সর্বোচ্চ সুবিধার জন্য বিনামূল্যে রেজিস্ট্রেশান করুন!

> বাংলা ভাষায় সর্বপ্রথম সম্পূর্ণ প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক এবং সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন।

Welcome to Helpful Hub, where you can ask questions and receive answers from other members of the community.

14.6k টি প্রশ্ন

16.2k টি উত্তর

5.7k টি মন্তব্য

6k জন নিবন্ধিত

0 টি ভোট
157 বার প্রদর্শিত

শুনেছি আল্লাহ্‌ তা'আলা মানুষের ভাগ্য আগেই নির্ণয় করে রেখেছন।তাহলে মানুষ নিজে কি তার ভাগ্য পরিবর্তন করতে পারে পরিশ্রমের মাধ্যমে?

"ধর্ম ও বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন তানভীর

1 উত্তর

0 টি ভোট

      মুসলিমদের ঈমানের একটা অংশ হল- তকদিরে বিশ্বাস করা। এক্ষেত্রে বিশ্বাসটা হবে এরকম যে, একজন ভাল কিছু করার জন্য আন্তরিকভাবে চেষ্টা করে যাবে আর ফলাফল কী হবে তার জন্য আল্লাহর উপর ভরসা রাখবে। এভাবেই জেনে আসছি স্কুলের বইগুলোতেও এরকমই লেখা ছিল। অর্থাৎ এক্ষেত্রে চেষ্টা করতে না বলা হয় নি।


     সবকিছু আল্লাহ ঠিক করে রেখেছেন- এটা একটা অগ্রহণীয় কথা। কারণ তাহলে মানুষকে এত চিন্তার স্বাধীনতা দেওয়ার কোনো দরকার ছিল না, আল্লাহ সেক্ষেত্রে তার আনুগত্য করার জন্য আরও কিছু ফেরেস্তা বা সেরকম কিছু সৃষ্টি করতে পারতেন। বরং এটা বলা যায় যে, আল্লাহ সব জানেন কে কী করবে, কার কী ঘটবে। অর্থাৎ একটা যন্ত্র যে তৈরি করে সেই কিন্তু ভাল করে জানে সেই যন্ত্র কী করতে পারবে, কোন অবস্থায় কতক্ষণ টিকবে, কোন পরিস্থিতিতে কী ঘটবে ইত্যাদি ইত্যাদি। ঠিক তেমনি আল্লাহ আমাদের সৃষ্টি করেছেন তাই আল্লাহ চুড়ান্তভাবেই জানেন যে, আমরা কে কী করতে পারি, কোন পরিস্থিতিতে কতক্ষণ টিকতে পারি ইত্যাদি ইত্যাদি। যা বুঝি তার আলোকে বলা যায় যে, এই পৃথিবীতে অধিকাংশ ঘটনার জন্যই আমরা আল্লাহকে দায়ী করতে পারি না হয়তো কোনো ঘটনার জন্যই না। আমি শুধু আমার সীমার মধ্যে যা ঘটে তা নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হতে পারি কিন্তু অন্য আরেকজন মানুষ কী ভাবছে তা কিন্তু আমার নিয়ন্ত্রণের মধ্যে নাও থাকতে পারে আর এটাকেই ভাগ্যের অংশবিশেষ বলা যেতে পারে। যেমনঃ ধরি একজন বাসা থেকে গাড়িতে চড়লেন অফিসে যাওয়ার জন্য, এখন তিনি জেনে নিলেন যে তার গাড়ির ড্রাইভার সুস্থ-স্বাভাবিক আছে কিনা, কিন্তু মোড় ঘোরার সময় অন্য একটা গাড়ি মুখোমুখি হলে সেই গাড়ির চালক সুস্থ-স্বাভাবিক আছে কিনা তা তো তার জানার সীমার বাইরে, সেজন্য বা আরও অন্য কোনো কারণে যাত্রায় কোনো সমস্যা হতে পারে যা নিয়ন্ত্রণ করা অসম্ভব- আর এটাকেই ভাগ্য বলা যেতে পারে।


        তবে, বাস্তব জীবনে দেখেছি যে, যারা চেষ্টা করেন আন্তরিকতা ও একাগ্রতার সাথে তারাই সফল হন বেশিরভাগ সময় (দু একটি ব্যতিক্রম ঘটনা বাদে) তা সে ভাল কাজ হোক আর খারাপ কাজ হোক। তাই আগে থেকেই আমার কর্মফল ঠিক করা আছে- এটা অগ্রহণীয়। চেষ্টা করতে হবে আর সফলতার জন্য আল্লাহর কাছে চাইতে হবে।

 

 

Signature:

"সৎ কাজ করার চেয়ে সৎ সঙ্গ অধিক উত্তম।"
উত্তর প্রদান করেছেন Expert Senior User (6.3k পয়েন্ট)

ধন্যবাদ আপনাকে এত সুন্দরভাবে উত্তর দেয়ার জন্য।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি ভোট
3 টি উত্তর

 

(হেল্পফুল হাব এ রয়েছে এক বিশাল প্রশ্নোত্তর ভান্ডার। তাই নতুন প্রশ্ন করার পূর্বে একটু সার্চ করে খুঁজে দেখুন নিচের বক্স থেকে)

(হেল্পফুল হাব সকলের জন্য উন্মুক্ত তাই এখানে প্রকাশিত প্রশ্নোত্তর, মন্তব্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর)

...