বাংলায় সর্বপ্রথম, সর্ববৃহৎ ও সর্বাধিক জনপ্রিয় প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক ও সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন একদম বিনামূল্যে এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন। রেজিস্ট্রেশান না করেই অংশগ্রহণ করতে পারবেন তবে, সর্বোচ্চ সুবিধার জন্য বিনামূল্যে রেজিস্ট্রেশান করুন!

> বাংলা ভাষায় সর্বপ্রথম সম্পূর্ণ প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক এবং সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন।

Welcome to Helpful Hub, where you can ask questions and receive answers from other members of the community.

14.6k টি প্রশ্ন

16.2k টি উত্তর

5.7k টি মন্তব্য

5.9k জন নিবন্ধিত

+1 টি ভোট
887 বার প্রদর্শিত
নয় মাসের ফেসবুক কনভারসেশন। কোনো ছেলে কি পারে ফেসবুক পরিচয়ে কোনো মেয়েকে ভালোবাসতে? আসলে এটা কি সম্ভব?
একটা ছেলের সাথে ফেসবুকে আমার পরিচয়। প্রথম যখন ওই ছেলে আমাকে মেসেজ দিতো তখন আমি রিপ্লে দিতাম নাহ দিলেও ৫,১০, দিন পর দিতাম। তারপর আস্তে আস্তে তাড়াতাড়িই রিপ্লে দিতাম।দুইমাস ধরে ভালোই চ্যাটিং হতো। তারপর আমি একদিন আমার আইডি ডিএক্টিভ করে দেই। ৪মাস পর রিএক্টিভ করি তখন ওর পিক এ লাইক পড়াতে ও আমাকে নক করে নাম্বার চায়। আমি নাম্বার দেই কিন্তুু কথা হয় নি মোবাইলে। আমি সিম অফ রাখতাম। এরপর ও আমাকে জানায় ও নাকি আমাকে ভালোবাসে আমার বিশ্বাস হয়নি। আমি না করে দেই। ও বলে যেনো অন্তত ওর ভার্চুয়াল ফ্রেন্ড হয়ে হলেও থাকি। ও মেসেজে এই এপর্যন্ত কতবার বুঝানোর চেস্টা করেছে ও আমাকে ভালবাসে।এমনকি ও ওর চরিত্রের অনেকখারাপ দিকের কথাও আমাকে বলে অনেক কিছু শেয়ার করে।ও বুঝাতে চায় ওর ওসব খারাপ দিক ছেড়ে ভালো হয়ে যেতে চায় কিন্তুু কেউ ওকে ভালোবাসেনাহ। আর ও বারবার নিজেকে আমার কাছে ছোট করতে চেস্টা করে। আমাকে নিয়ে গল্প লিখে দেয়,আমার একটা ছবি দেখে আকার চেস্টা করে। ওর ফ্রেন্ড সার্কেল সবাইকে আমার কথা জানায়। ইদানিং আমি ওর প্রতি দুর্বল।ওকে সেটাও জানাইই। অন্য কোনো প্রবলেম না। আমি এমনিতেই ছেলেদের বিশ্বাস করি কম তাও আবার ফেসবুকে লাভ নস্টালজিক মনে হয়! উল্লেখ্য ছেলেটার অনেক ছবি দেখেছি ভালোই লেগেছে। কিন্তুু আমি দেখতে অতো সুন্দর নাহ কিছু পিক ওকে দিসি। কিন্তুু তারপরও ও বলে ও আমাকে ভালোবাসে। এখন কিভাবে বুঝব আসলে ওর কথা সত্য কিনা? কোনো ছেলেকি ফেসবুকে পরিচয়ে এখনো দেখা না হতে কোনো মেয়েকে ভালোবাসতে???? প্লিজ হেল্প।
"সমাজ ও সম্পর্ক" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাত সদস্য

2 উত্তর

+1 টি ভোট
কেন পারে না? অবশ্যই পারে কারণ ফেইসবুকের ছেলেরাও তো মানুষ। :)
আর ঘটনা তো বেশিরভাগ এরকমই হয়। ছেলেরা কোনো মেয়েকে টার্গেট করলে প্রথম দিকে মেয়েরা তেমন একটা পাত্তা দেয় না। তবে এটার পিছনে যদি লেগে থাকা যায় এবং মেয়ে যদি সিঙ্গেল হয় তাহলে শেষ পর্যন্ত একটা কিছু হয়ে যায়। বাস্তবে এরকমই ঘটে।
খুব দেখে শুনে অনেক মেয়েই তো প্রেম করেছে এমন কি বিয়ে পর্যন্তও করেছে। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই তো বিয়ের আগে এমনকি বিয়ের পরেও ব্রেকআপ / ডিভোর্স হয়েছে। তাহলে কি এটাই প্রমাণ করে না যে মানুষ চেনা এত সহজ নয়? কিংবা একসাথে এমনকি পাশাপাশি থাকলেও মানুষ চেনা সহজ কোনো কাজ নয়। সুতরাং ফেইসবুকের পরিচয়ে চেনা কতটা সহজ তা নিজেই চিন্তা করে দেখুন তবে এরকম ঘটনাও কিন্তু রয়েছে ফেইসবুক বা ভার্চুয়াল জগতের পরিচয়ের মাধ্যমে প্রেম এবং তারপর সারা জীবন সুখে শান্তিতে বসবাস করছে।
তার চরিত্রের অনেক খারাপ দিকের কথা আপনাকে বলেছে কিন্তু সেটা কতটা খারাপ তা জানি না। তবে সাবধান বেশি খারাপ হলে একটা কথা কিন্তু সত্য যে, কুকুরের লেজ কখনো সোজা হয় না। (অবশ্য অনেকেই বলে থাকেন সোজা হলেও কুকুর সারা জীবন কুকুরই থেকে যায় :D ) তবে, যাই হোক প্রসঙ্গ সেটা নয়, মানুষের মধ্যে ভালো-খারাপ থাকবেই। তবে সেটা খুব বেশি খারাপ না হলেই ভালো।

বিয়ের আগে কিংবা প্রেম এর আগে ছেলেরা মেয়েদের মন পাওয়ার জন্য অনেক কিছুই করে বা বলে। প্রয়োজনে কবিতার বই থেকে কবিতার লাইন মুখস্ত করে। অনন্ত জলিলের মতন অনেক অসম্ভব কাজকেও সম্ভব করে। নিঃসন্দেহে এগুলো ভালো কাজ বলা যেতে পারে কারণ সে অন্তত মেয়েটিকে পাওয়ার জন্য তার নিজের পক্ষে কঠিন কাজ গুলো করেছে বা করার চেষ্টা করেছে।

একটা কৌতুক মনে পড়ে গেলো।
পূর্ণিমা রাতে বাঁশ বাগনের নিচে বসে প্রেমিক প্রেমিকা গল্প করছে।
কিছুক্ষন পর প্রেমিকা বললঃ দেখ এটা কি চাঁদ?
প্রেমিকঃ হ্যাঁ,পূর্নিমা রাতের চাঁদ।
কয়েকদিন পর তাদের বিয়ে হল। কিছুদিন পর তারা আবার সেই বাঁশ বাগানের নিচে বসে গল্প করছে।
প্রেমিকাঃ ওগো এটা কি চাঁদ?
প্রেমিকাঃ না, এটা তোমার বাবার লাগানো টিউব লাইট। :D

মানুষ বদলে যেতেই পারে, সেটা নিজের স্বভাবের কারণে হোক কিংবা পরিস্থিতির কারণে হোক। তাই একটা সময় আপনাকে কোনো না কোনো মানুষকেই বিশ্বাস করতে হবে। সুতরাং আরেকটু যাচাই বাছাই করে তারপর সামনের দিকে এগিয়ে যেতে পারেন। অবশ্য আপনি ইতিমধ্যে উল্লেখ করেছেন যে আপনি তার প্রতি দুর্বল, এর মানে অর্ধেক কাজ ইতিমধ্যে ঘটিয়ে ফেলেছেন। :D আবার ছবি দেখেও আপনার পছন্দ হয়েছে (অবশ্য ফটোশপ বা এই জাতীয় সফটওয়্যরের সুবাদে আজকাল অনেকেই ভার্চুয়াল জগতে সুন্দর হয়ে উঠছে। :D তবে সুন্দর হওয়াটা কোনো গুরুত্বপূর্ণ যোগ্যতা নয়। সুতরাং এগিয়ে যান এবং চিন্তা-ভাবনা করেই এগিয়ে যান। আজকাল মানুষ বিভিন্নভাবে প্রতারিত হচ্ছে সুতরাং সতর্কতার সাথে এগিয়ে যান। সেই রকম কিছু ঘটানোর আগে পরিচয় ভালো করে জেনে নিন এবং খোঁজ খবর নিন।
অসুবিধা নেই মেয়েরা এমনিতেই ছেলেদের বিশ্বাস কম করে, বিশেষ করে ভালো ছেলেদেরকে :P আর অদক্ষ বা খারাপ ছেলেদের বিশ্বাস করার বেলায় মেয়েরা আবার বেশি দক্ষ বা পটু। তাই সতর্কতার সাথে এগিয়ে যান। হতে পারে সৃষ্টি কর্তা আপনার জন্য এই ছেলেকেই ঠিক করে রেখেছেন। :)

আপনাদের মধ্যে মধুর সম্পর্ক গড়ে উঠুক এই কামনায় শেষ করলাম আমার উত্তর।

উত্তর প্রদান করেছেন Expert Senior User (338 পয়েন্ট)
0 টি ভোট

একটা ছেলে একটা মেয়েকে কয়েকটা কারণে পছন্দ করতে পারে, সেগুলোর মধ্যে প্রধান কিছু কারণ হল:

১. জীবনসঙ্গী করার ইচ্ছায়।

২. হরমোনাল আবেগের তাড়নায়।

৩. বন্ধুদের মেয়েবন্ধু আছে, নিজেরও একজন দরকার। মানে টাইমপাস। এটা এখন অনেকের কাছে একটা ফ্যাশনের মত হয়ে গেছে।

প্রথম ক্ষেত্রে মানুষটাকে ভালোভাবে জানা, দেখা, ও তার মানসিকতা বোঝা দরকার। দ্বিতীয় ক্ষেত্রে মানুষটাকে পটানোর দরকার (অবশ্য ভাল উদ্দেশ্যেও হাতে গোনা কয়েকজন মেয়েদের পটায়)। তৃতীয় ক্ষেত্রে একরকম মানুষ হলেই হল।

এখন প্রথম ক্ষেত্রে ছেলে ভাল মনের মানুষ চাইবে, সাথে চেহারা খুব সুন্দর হলে সোনায় সোহাগা। দ্বিতীয় ক্ষেত্রে ছেলে সুন্দর মেয়ে চাইবে, সুন্দর মন নয়। তৃতীয় ক্ষেত্রে, কিছুই যায়-আসে না। টাইম পাস করার মত মেয়ে হলেই হল, অন্য যা কিছু তা বাড়তি পাওয়া।

 প্রথম ক্ষেত্রে ছেলের সেই মেয়েকে বিয়ে করার প্ল্যান থাকে। দ্বিতীয় ক্ষেত্রে ছেলের সেই মেয়েকে বিয়ে করার প্ল্যান থাকতে পারে আবার নাও পারে, তবে পরকীয়া করার সুযোগ ছাড়ার সম্ভাবনা কম। তৃতীয় ক্ষেত্রে, বিয়ের কথা মাথায় নেই।

 ছেলেটা যেহেতু তার বন্ধুদের আপনার কথা বলেছে তার মানে তার বন্ধুদের গার্লফ্রেন্ড আছে আর তাই দেখে তারও শখ হয়েছে। আর যেহেতু কেউ তাকে ভালবাসছেনা তার মানে ফ্যামিলি থেকে তার টেক কেয়ার কম করে, যা খারাপ হয়েছে তা সঙ্গদোষে হয়েছে। না দেখে, ভালভাবে না বুঝে যে প্রেমে পড়ে সে সুবুদ্ধির প্রেরণায় একাজ করছেনা, করছে আবেগের প্ররোচনায়। তার সিদ্ধান্ত স্থির নয়। <br> ছেলেদের পটানো কথা বা কথায় ভুলবেননা। নিজেও আবেগকে প্রশ্রয় দেবেন না। টিনেজ বয়সে মানুষের আবেগ তাকে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ভুল পথে চালায়।

 

 

Signature:

"সৎ কাজ করার চেয়ে সৎ সঙ্গ অধিক উত্তম।"
উত্তর প্রদান করেছেন Expert Senior User (6.3k পয়েন্ট)

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি ভোট
1 উত্তর
09 মার্চ "সমাজ ও সম্পর্ক" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Rajhon Robidash New User (0 পয়েন্ট)
0 টি ভোট
1 উত্তর
02 ডিসেম্বর 2016 "সমাজ ও সম্পর্ক" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন নিশাত ইয়াসমিন
0 টি ভোট
1 উত্তর
0 টি ভোট
3 টি উত্তর
+1 টি ভোট
5 টি উত্তর
06 জানুয়ারি 2013 "সমাজ ও সম্পর্ক" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন sakibulhimel Junior User (41 পয়েন্ট)

 

(হেল্পফুল হাব এ রয়েছে এক বিশাল প্রশ্নোত্তর ভান্ডার। তাই নতুন প্রশ্ন করার পূর্বে একটু সার্চ করে খুঁজে দেখুন নিচের বক্স থেকে)

(হেল্পফুল হাব সকলের জন্য উন্মুক্ত তাই এখানে প্রকাশিত প্রশ্নোত্তর, মন্তব্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর)

...