বাংলায় সর্বপ্রথম, সর্ববৃহৎ ও সর্বাধিক জনপ্রিয় প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক ও সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন একদম বিনামূল্যে এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন। রেজিস্ট্রেশান না করেই অংশগ্রহণ করতে পারবেন তবে, সর্বোচ্চ সুবিধার জন্য বিনামূল্যে রেজিস্ট্রেশান করুন!

> বাংলা ভাষায় সর্বপ্রথম সম্পূর্ণ প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক এবং সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন।

Welcome to Helpful Hub, where you can ask questions and receive answers from other members of the community.

14.6k টি প্রশ্ন

16.2k টি উত্তর

5.7k টি মন্তব্য

5.9k জন নিবন্ধিত

+1 টি ভোট
511 বার প্রদর্শিত
আমি এক ছেলেকে মোবাইল এ বিয়ে করি।ছেলেতার সাথে আমার ৮ বছর  প্রেম। গুনাহ হবে এই ভেবে আমরা মোবাইল এ বিয়ে করি।বিয়ের সময় ছেলেতা মোবাইলের একপ্রান্তে ছিল আর তার সাথে দুইজন  সাক্ষী আর একজন উকিল ছিল কিন্তু আম্র কোন অবিভাবক ছিলনা আর তারা এই ব্যাপার এ জানে ও না...
আমার পাশে কোন সাক্ষী ছিলনা জে ২ জন ছিল তারা ছিল অই ছেলের ঠিক করা সাক্ষী। এখন আমার পরিবার আমাকে অন্য যায়গায় বিয়ে দিতে চায় আমি তার ব্যপার এ রাজি করানোর চেষ্টা করি কিন্তু রাজি হয়নি ।কিন্তু বাবা মা ক্কষ্ট পাবে এই ভেবে আমি বিয়ের ব্যপার এ কিছু বলতে পারছিনা।

আর যে ছেলের সাথে এখন বিয়ে ঠিক হয়েছে সে অনেক ভাল আর আমি যাকে মোবাইল এ কবুল বলি সে ও অনেক ধার্মিক।
কিন্তু আমি এখন মা বাবাকে কষ্ট দিতে চাইনা
আমি কি এখন মা বাবার ঠিক করা ছেলেক বিয়ে করতে পারবো? আমার মোবাইল এ বিয়ে টা কই বৈধ হয়েছে???

"সমাজ ও সম্পর্ক" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাত সদস্য

2 উত্তর

+1 টি ভোট

আপনার প্রশ্নের জন্য ধন্যবাদ।

ইসলামী শরীয়ত মোতাবেক বিয়ে এবং বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী মুসলিম বিয়ের মধ্যে বেশ পার্থক্য লক্ষ্যণীয়। আপনার অবস্থাটি ব্যাখ্যা করার জন্য এ দুটো বিষয় তুলে ধরা দরকার।তবে বিস্তারিত বর্ণনায় না গিয়ে আপনার বর্তমান অবস্থা সাপেক্ষে তথ্য তুলে ধরা হলোঃ

 

ইসলামী শরীয়ত মোতাবেক বিয়েঃ এক্ষেত্রে একজন নারী ওয়ালী বা তার বৈধ অভিভাবকের অনুমতি ছাড়া বিয়ে করলে সে বিয়ে বৈধ হবে না।এ সংক্রান্ত কতিপয় হাদিস তুলে ধরা হলো-

 

এক মহিলা আরেক মহিলাকে বিয়ে দিতে পারবে নাঅথবা মহিলা নিজে নিজেকে বিয়ে দিতে পারবে নাব্যভিচারিনী নিজে নিজেকে বিয়ে দেয়”[ইবনে মাজাহ (১৭৮২) ও সহীহ জামে (৭২৯৮)] –এ থেকে বোঝা যায় কোন মেয়ে নিজে নিজে বিয়ে করলে সেটা শরীয়ত সম্মত হবে না।

 

আয়েশা (রাঃ) হতে বর্ণিত, রাসুল (সাঃ) বলেছেন, "যদি কোন নারী তার ওয়ালীর(অভিভাবক) অনুমতি ছাড়া বিয়ে করে, তবে তার বিয়ে বাতিল, বাতিল, বাতিল।" (আবু দাউদ, তিরমিযী, ইবনে মাজাহ, ইবনু হিব্বান, হাকিম, মিশকাত হা/৩১৩১, বাংলা মিশকাত হা/২৯৯৭)-অর্থাৎ অভিভাবকের অনুমতি ছাড়া কোন নারী বিয়ে করলে সেটা অবৈধ হবে।

 

আপনি যেহেতু আপনার বৈধ অভিভাবকের অনুমতি ছাড়াই বিয়ে করেছেন সুতরাং ইসলামী শরীয়ত মোতাবেক অাপনার বিয়ে বৈধ নয়।

 

বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী মুসলিম বিয়েঃ বাংলাদেশে ১৯৩৯ সালের মুসলিম বিবাহ বিচ্ছেদ আইন, ১৯৬১ সালের মুসলিম পারিবারিক আইন, ১৯২৯ সালের বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন, ১৯৭৪ ও ১৯৭৫ সালের মুসলিম বিবাহ ও তালাক (রেজিস্ট্রেশন) আইন, ১৯৮০ সালের যৌতুক নিরোধ আইন প্রভৃতি আইনের সমন্বিত নিয়ম-ধারার অধীনে মুসলমান সমাজে আইনী বিয়ে ও আনুষঙ্গিক কার্যক্রম সম্পাদিত হয়অবশ্য এই যাবতীয় আইনই ইসলামী শরীয়তের অন্তর্বর্তি এমনটা বলা যায় না, বরং কোনো কোনো ক্ষেত্রে ইসলামী শরীয়াহ পরিপন্থি অনেক বিধানও এতে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।যেমন এ ক্ষেত্রে কনের অভিভাবকের অনুমতি বিয়ের জন্য বাধ্যতামূলক নয়।মুসলিম আইন অনুসারে বিয়ে একটি ধর্মীয় দায়িত্বই কেবল নয়, একটি দেওয়ানী চুক্তিও।এই আইন অনুসারে একটি পূর্ণাঙ্গ বিয়ের জন্য কতিপয় শর্ত পূরণ করতে হয়:

 

*উভয়পক্ষের ন্যুনতম বয়স (বরের বয়স কমপক্ষে ২১ এবং কনের বয়স কমপক্ষে ১৮ হওয়া বাধ্যতামূলক)

*পারস্পরিক সম্মতি

*দেনমোহর

*সুস্থ মস্তিষ্কের প্রাপ্তবয়স্ক ২ জন সাক্ষী

*আইনী নিবন্ধন অর্থাৎ বিয়ে রেজিস্ট্রি করা

 

অ্যাড. এলিনা খান, প্রধান নির্বাহী বাংলাদেশ হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশন এর মতে বিয়ে রেজিস্ট্রি না করা হলে সে বিয়ে বৈধ বিয়ে হিসাবে ধরা হবে না।

 

 

Signature:

“তথ্যের জন্য যোগাযোগ করুন,চিকিৎসার জন্য নয়”
উত্তর প্রদান করেছেন Expert Senior User (307 পয়েন্ট)
সম্পাদিত করেছেন

টেকনিক্যাল কোন সমস্যায় পুরো তথ্যটুকু উত্তরে দেওয়া সম্ভব না হওয়ায় বাকী অংশটুকু এখানে দেওয়া হলো-

অ্যাড. এলিনা খান, প্রধান নির্বাহী বাংলাদেশ হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশন এর মতে বিয়ে রেজিস্ট্রি না করা হলে সে বিয়ে বৈধ বিয়ে হিসাবে ধরা হবে না।

তথ্যসূত্রঃ http://www.bd-pratidin.com/friday/2014/11/28/46400#sthash.WmTm1FML.dpuf

 

যেহেতু আপনার বিয়ে রেজিস্ট্রি হয়নি তাই বাংলাদেশের মুসলিম বিবাহ আইন অনুযায়ীও আপনার বিয়ে বৈধ নয়।

 

উভয় বাস্তবতা বিবেচনায় আপনার বিয়ে বৈধ হয়নি।

 

তবুও বিষয়টি অারও নিশ্চিত হতে একজন আলেম ও একজন আইনজীবির সাথে পরামর্শ করুন।

 

আপনার সুখময় দাম্পত্য জীবনের জন্য শুভকামনা রইলো।

 

তথ্যসূত্রঃ

*http://bn.wikipedia.org/wiki/%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%82%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%A6%E0%A7%87%E0%A6%B6%E0%A7%87_%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%B9%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%A5%E0%A6%BE#.E0.A6.AE.E0.A7.81.E0.A6.B8.E0.A6.B2.E0.A6.BF.E0.A6.AE_.E0.A6.86.E0.A6.87.E0.A6.A8

*http://islamqa.info/bn/2127

*http://www.bd-pratidin.com/friday/2014/11/28/46400

*http://www.infokosh.gov.bd/atricle/%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%B9%E0%A6%B0%E0%A7%87%E0%A6%9C%E0%A6%BF%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%9F%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%87%E0%A6%B6%E0%A6%A8

 

 

 

 

 

+1 টি ভোট

আমি যতদূর জানি অভিভাবককে না জানিয়ে বিয়ে করাটা ইসলামে বৈধ নয় তবে অভিভাবকের অমতে বিয়ে করা বৈধ আছে। তবে কিছু নিয়ম-কানুন রয়েছে। বিয়ের প্রসঙ্গে বিস্তারিত একজন উত্তর দিয়েছেন আপনি সেখান থেকে জানতে পারবেন।

তবে আমার প্রশ্ন হচ্ছে, আপনি এতদিন যে ছেলের সাথে প্রেম করেছেন তাকে ভুলে অন্য একজনকে বিয়ে করতে পারবেন তো? ছেলেটার সাথে কি আপনার দেখা হয়েছিলো কখনো? শুধুই কি কথা? আর অন্য কিছু হয়েছিলো কি? মানে শারীরিক কোনো সপর্ক? এখন আপনি যদি অন্য কাউকে বিয়ে করেন তো আপনার দিক থেকে বা আপনার ঐ ছেলের দিক থেকে এতে কোনো আপত্তি আছে কিনা? ভবিষ্যতে আপনার এই নতুন বিয়ের পাত্রের সাথে বিয়ে হলে এই সব ব্যাপার নিয়ে কোন ঝামেলা হবে কিনা? এই সব চিন্তা ভাবনা করে তারপর সামনের দিকে এগিয়ে যান। আপনার বাবা মা কে কষ্ট দিয়ে চান না সেটা ভালো কথা তবে এই কারণটাই যদি ভবিষ্যতে আপনার কষ্টের বড় কারণ হয়ে দাঁড়ায় তাহলে সেটা আপনার জন্য বিপদজনক হতে পারে। আপনাদের দিকের অবস্থা বিস্তারিত না জেনে আপাতত এর থেকে বেশি পরামর্শ দিতে পারলাম না। আর যদি প্রেমের টানে আপনার সেই মোবাইলে বিয়ে করা ছেলের কাছে যেতে চান তাহলে তার পূর্বে অবশ্যই ঐ ছেলে সম্পর্কে ভালো মতন খোঁজ খবর নিয়ে তারপর যাবেন।

উত্তর প্রদান করেছেন Expert Senior User (338 পয়েন্ট)

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

+1 টি ভোট
2 টি উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
02 ডিসেম্বর 2016 "সমাজ ও সম্পর্ক" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন নিশাত ইয়াসমিন
+2 টি ভোট
5 টি উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
09 ফেব্রুয়ারি "সমাজ ও সম্পর্ক" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অধরা
+1 টি ভোট
1 উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
05 ডিসেম্বর 2016 "সমাজ ও সম্পর্ক" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন লরিন
0 টি ভোট
1 উত্তর

 

(হেল্পফুল হাব এ রয়েছে এক বিশাল প্রশ্নোত্তর ভান্ডার। তাই নতুন প্রশ্ন করার পূর্বে একটু সার্চ করে খুঁজে দেখুন নিচের বক্স থেকে)

(হেল্পফুল হাব সকলের জন্য উন্মুক্ত তাই এখানে প্রকাশিত প্রশ্নোত্তর, মন্তব্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর)

...