বাংলায় সর্বপ্রথম, সর্ববৃহৎ ও সর্বাধিক জনপ্রিয় প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক ও সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন একদম বিনামূল্যে এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন। রেজিস্ট্রেশান না করেই অংশগ্রহণ করতে পারবেন তবে, সর্বোচ্চ সুবিধার জন্য বিনামূল্যে রেজিস্ট্রেশান করুন!

> বাংলা ভাষায় সর্বপ্রথম সম্পূর্ণ প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক এবং সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন।

Welcome to Helpful Hub, where you can ask questions and receive answers from other members of the community.

14.6k টি প্রশ্ন

16.3k টি উত্তর

5.7k টি মন্তব্য

6k জন নিবন্ধিত

0 টি ভোট
2.1k বার প্রদর্শিত

আমি জানতে চাচ্ছি যে সহবাসের সময় একে অপরের যৌনাঙ্গে চুম্বন করতে পারবে কিনা? ইসলামের দৃষ্টি কোন থেকে জানতে চাই।

"ধর্ম ও বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন New User (8 পয়েন্ট)

আপনি এই সংক্রান্ত টিপস পেতে ইউটিবের এই চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করেন এবং ভিডিও গুলো দেখেন। এখানে যৌন বিষয়ক ও টিপস সংক্রান্ত ভিডিও রয়েছেঃ https://www.youtube.com/channel/UCbpyhsw9am0BlIY6zFvsQ2g

অথবা এই পেজে লাইক দিয়ে রাখেন https://www.facebook.com/DehoghoriBarta

আর এই ভিডিও টি দেখলে সব জানতে পারবেনঃ  

3 উত্তর

+2 টি ভোট
 
নির্বাচিত

এটা হারাম কিনা এরকম কোন দলীল পাওয়া যায়নি তবে কিছু কিছু ইসলামি চিন্তাবিদের মতে এটা মাকরূহ, কারণ গোপনাঙ্গ চোষন এর মাধ্যমে স্বামীর লিঙ্গ থেকে স্ত্রীর মুখে বা স্ত্রীর যোনি থেকে স্বামীর মুখে নাপাক তরল যাওয়াটা অস্বাভাবিক কিছু নয় । অন্যান্য ইসলামি চিন্তাবিদরা জোর দিয়ে বলেছেন গোপনাঙ্গ চোষন নিষিদ্ধ বলা যায় এমন দলিল কোথাও পাওয়া যায়নি।

স্বামী অথবা স্ত্রীর গোপনাঙ্গ মানব দেহের অন্য অঙ্গের মতই বিবেচনা করা হয় (যেমন স্তন অথবা ঠোট)। অন্যদিকে মুখ হচ্ছে শরীরের সর্বাপেক্ষা পবিত্র অঙ্গ। তাই ইসলামিক চিন্তাবিদগন সতর্ক করে দিয়েছেন কোন ভাবেই মনি অথবা মজি (প্রাক-মিলন-তরল অথবা বীর্য) যেন মুখের ভিতর না যায়। এ তরল মুখে যাবার সম্ভাবনা প্রচুর। তাই এই চোষন ক্রিয়াকে মাকরুহ্ বলেছেন অনেকে। এছাড়া গোপন অঙ্গে অনেক রকম জীবাণু থাকে সেই দিক দিয়েও সতর্ক থাকা উচিৎ। তবে এই ব্যাপারে ইসলামে সরাসরি কোন নিষেধ আরোপ করেনি।

উত্তর প্রদান করেছেন ফিরোজ
নির্বাচিত করেছেন
+1 টি ভোট

ইসলামে নিষেধ নেই। চিকিৎসা বিজ্ঞানের মতে ঠোঁট ও গোপনাঙ্গ পরিস্কার ও জীবাণুমুক্ত থাকলে করা যেতে পারে যেহেতু এটা শৃঙ্গারের একটা অংশ। তবে কামশাস্ত্রের পণ্ডিত ব্যৎসায়ন একে অস্বাভাবিক কাজ বলেছেন ও নিয়মিত করতে বারণ করেছেন। বিভিন্ন দৃষ্টিকোণ থেকে তথ্য দিলাম জানার স্বার্থে।

 

 

Signature:

"সৎ কাজ করার চেয়ে সৎ সঙ্গ অধিক উত্তম।"
উত্তর প্রদান করেছেন Expert Senior User (6.3k পয়েন্ট)

আপনি দয়া করে বুঝতে চেষ্টা করুন, ইসলামে সব কাজের কথা ধরে ধরে বলা থাকেনা | বহু বৈশিষ্ঠ মিল থাকে এমন একটা কাজের কথা থাকে যার সাথে কিয়াস করে হুকুম বের করতে হয় || যে বিষয়ে জানা থাকেনা তা বলা ঠিকনা | হাদীসে এসেছেঃ কোন বিষয় অনিশ্চিৎ তা প্রকাশ করা মিথ্যা বলার শামিল JU111

0 টি ভোট

এই কাজ টা করা উচিৎ না | কারণ ২ টিঃ
* ১. ইসলাম একটি সুন্দর ভদ্র জীবন ব্যবস্হার নাম | সাধারণত দেখা যায় গৃহপালিত পশু রা যৌনাংগ মুখে নেয় | তাই নিসঃন্দেহে কাজটা এড়িয়ে চলাই ভাল | কারণ ইসলাম এসেছে পশুত্ব দুর করতে | এবং
.
* ২. নিশ্চয়ই কাজটা এক প্রকার নোংরামী, আর ইসলাম কখনো নোংরামী সমর্থন করেনা | কারণ দেখুন হায়েজ নেফাস এর সময় সহবাস করা হারাম | পেছন দরজায় ও সহবাস করা হারাম | যদিও এ ২ সময়ে উভয়ে আনন্দ পাবে, যদিও উভয়ের সম্মতিতে করা হয় তবু হারাম | কারণ একটাই, তা হলো নোংরামী | #আর মানুষের মুখ পবিত্র করে তৈরী করা হয়েছে |

উত্তর প্রদান করেছেন Senior User (130 পয়েন্ট)

মানুষের যৌনাংগ এলাকা এমন, তা যতই পাক করা হোক, এমনকি যদিও গোসল করার পর বা ওযু করার পর সে মানুষটাই পাক থাকে, তবু যদি সেখানে সরাসরি হাত লাগে তবে ওযু ভেংগে যায় | বোঝাই যাচ্ছে যে ...... আগের কমেন্টের আলোকে এখানে মুখ দেয়াটা কবিরা গুনাহ ই হবে | ******* তবে না জেনে করে ফেলেছে কেউ এমন কোন পাপ কাজে পাপ নেই | জানার পর না করলে হলো | তাওবা করতে হবে শুধু ||

এখানে বলা হচ্ছে যে, একাজ করা যাবে কিন্তু এটা অপছন্দনীয় কাজ। জীবাণু বা অপরিচ্ছন্নতা থেকে মুক্ত থাকতে হবে। আর কোনভাবেই কোন তরল যেন গোপনাঙ্গ থেকে মুখে না যায় তা খেয়াল করতে হবে অর্থাৎ এই কাজকে শৃঙ্গারের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখতে হবে যাকে ইংরেজিতে Oral Stimulation বলে, Oral Sex ভিন্ন বিষয় যার সাথে চরমানন্দ লাভ, Orgasm- এর সম্পর্ক আছে। এবার আসা যাক, গোপনাঙ্গ স্পর্ষ করলে ওযু ভাঙবে কিনা সেই প্রসঙ্গে। ইমাম আবু হানিফা (রহঃ) বলেছেন ওযু করা লাগবে না আর অন্য আরেকজন ইমাম বলেছেন ওযু করা লাগবে। এটা তিরমিযী শরীফের পবিত্রতা অধ্যায়ে পাওয়া যাবে। এখন উনাদের কেউ কিন্তু বলেননি যে, অন্যজন ভুল বলেছেন। যে যে ইমামকে অনুসরণ করবে সে সেই ইমামের সিদ্ধান্তমতো কাজ করবে। অন্যজনকে ভুল বলার কোন অর্থ হয় না। একইভাবে "আমিন" বলা নিয়েও ৪ ইমামের মধ্যে মতভেদ আছে। ইমাম হানিফা (রহঃ) বলেছেন মনে মনে পড়তে হবে আর আরেক ইমাম বলেছেন জোরে পড়তে হবে। আর ইসলামে সবকিছু যুক্তি দিয়ে হয়না। হাদীসে বলা হয়েছে পশুর মতো সহবাস না করতে। যেহেতু পশুরা শৃঙ্গার কম করে এবং সেই সুযোগও কম তাই এই বিষয়টাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে যতটুকু জেনেছি। আর মুখ দিয়ে শৃঙ্গার করা যাবে না- এর পেছনে যুক্তি দেখানো হয় যে, মুখ দিয়ে আমরা কুরান পড়ি, জিকির করি তাই মুখ ঐ নাপাক স্থানে লাগানো যাবেনা যেহেতু ওযু থাকলেও ঐ জায়গা অপবিত্র থেকে যাচ্ছে। পাল্টা যুক্তি হিসেবে বলা যেতে পারে তাহলে তো একজন ঐ নাপাকি নিয়েই যাবতীয় ইবাদত করে যাচ্ছে। এই নাপাক অবস্থায় কুরান পড়া কি ঠিক হবে? প্রশ্নকারী শুধু Oral Stimulation- এর বিষয়ে জানতে চেয়েছেন। এককথায় উত্তর হলঃ এটা নিয়ে মতভেদ আছে, স্বামী-স্ত্রী সম্মত থাকলে সতর্কতাসাপেক্ষে করতে পারবে। কোন গুনাহ নেই। অন্যদল সম্পূর্ণ নিরাপত্তার বিষয় বিবেচনাসাপেক্ষে বারণ করেছেন। তবে এটা কবীরা গুনাহ নয় সে বিষয়ে অধিকাংশ পণ্ডিত একমত। এখন ৪ ইমামগণের মধ্যে যে যে ইমামকে অনুসরণ করে সে সব ক্ষেত্রেই সেই ইমামের সিদ্ধান্ত মেনে চলবে। এগুলো নিয়ে বিতর্কের অবকাশ নেই।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

–2 টি ভোট
4 টি উত্তর
0 টি ভোট
2 টি উত্তর
06 এপ্রিল 2013 "ডাক্তার ও চিকিৎসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাত সদস্য
0 টি ভোট
2 টি উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর

 

(হেল্পফুল হাব এ রয়েছে এক বিশাল প্রশ্নোত্তর ভান্ডার। তাই নতুন প্রশ্ন করার পূর্বে একটু সার্চ করে খুঁজে দেখুন নিচের বক্স থেকে)

(হেল্পফুল হাব সকলের জন্য উন্মুক্ত তাই এখানে প্রকাশিত প্রশ্নোত্তর, মন্তব্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর)

...