বাংলায় সর্বপ্রথম, সর্ববৃহৎ ও সর্বাধিক জনপ্রিয় প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক ও সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন একদম বিনামূল্যে এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন। রেজিস্ট্রেশান না করেই অংশগ্রহণ করতে পারবেন তবে, সর্বোচ্চ সুবিধার জন্য বিনামূল্যে রেজিস্ট্রেশান করুন!

> বাংলা ভাষায় সর্বপ্রথম সম্পূর্ণ প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক এবং সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন।

Welcome to Helpful Hub, where you can ask questions and receive answers from other members of the community.

14.6k টি প্রশ্ন

16.2k টি উত্তর

5.7k টি মন্তব্য

6k জন নিবন্ধিত

0 টি ভোট
272 বার প্রদর্শিত
"শিক্ষা ও বই" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাত সদস্য

1 উত্তর

0 টি ভোট

প্রতি বছর হাজার হাজার
শিক্ষার্থী জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের
অধীনে থাকা বিভিন্ন কলেজ
থেকে পাশ করে বের হচ্ছে । কিন্তু
তারা পাশ করে বের
হয়ে দিশেহারা হয়ে যায়, কারন এখান
থেকে পাশ করা বেশীর ভাগ
শিক্ষার্থীরা কি নিয়ে বের
হচ্ছে তা গবেষণার বিষয় ।
কয়েকটি কারন উল্ল্যেখ করছি-
কলেজ গুলোতে পর্যাপ্ত শিক্ষক নেই,
এমনও হয় যে একজন
শিক্ষককে এইচ.এস.সি ১ম ও ২য় বর্ষ ,
ডিগ্রী সকল বর্ষ, অনার্স সকল বর্ষ
এবং মাষ্টার্স এর সব ক্লাস করতে হয়
জাতীয়
বিশ্ববিদ্যালয়ে যতগুলো বিষয়ে
অনার্স কোর্স চালু আছে তার কোন
একটি বিষয়ের জন্যও ভাল মানের
এবং সিলেবাস ভিত্তিক কোন বই
বাজারে নেই, এর মধ্যেও যে কয়টি বই
বাজারে পাওয়া যায় তার অধিকাংশ
ভুলে ভরা ।
পরীক্ষার কোন বালাই নাই, এই বছর
জানুয়ারিতে ১ম বর্ষ পরীক্ষা হলে,
পরের বছর ২য় বর্ষ পরীক্ষা হয়
মে বা জুন বা জুলাই মাসে,
কিংবা আরো পরেও হতে পারে
একটি মাত্র রুটিন
দিয়ে পরীক্ষা নেয়া জাতীয়
বিম্ববিদ্যালয়ের ধর্মে নেই, রুটিন দুই
বা তিনবার না দিয়ে কোনদিন
পরীক্ষা হয় না
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের
অধীনে অনার্স/মাষ্টার্স
পরীক্ষা গুলোতে যদি কোন পর্যবেক্ষক
অদৃশ্য
থেকে পুরোটা পরীক্ষা পর্যবেক্ষণ
করেন, তবে তিনি লজ্জা পাবেন,
তিনি মুখ লুকিয়ে বাসায় চলে যাবেন
এবং হয়ত আর এই কাজে ফিরে আসবেন
না
পরীক্ষার হলে গার্ড
দিতে আসা শিক্ষকরা এখানে অসহায়,
আমি নিশ্চিত যে এই
শিক্ষকরা তাদের জীবনের
সবচে নিকৃষ্টতম সময় কাটান, যে কেউ
এমন একজন
শিক্ষককে জিঙ্গাসা করে দেখতে
পারেন । এখানে শহীদদের রক্তের
বিনিময়ে পাওয়া স্বাধীনতার পূর্ণ
আস্বাদ সবাই গ্রহন করেন
এভাবে দেওয়া পরীক্ষার
খাতা যে চুলচেরা বিশ্লেষণ
করে মূল্যায়ন করা হয় তা নিম্চিত,
কারন রেজাল্ট দিতে দিতে ৬
কিংবা ৭ মাস লেগে যায়,
এতো ভালভাবে নিশ্চয়ই বিশ্বের কোন
দেশে খাতা মূল্যায়ন করা হয় না
সবচে লজ্জার বিষয়টি হচ্ছে, জাতীয়
বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের
প্রাইভেট পড়তে হয়
একটি শিক্ষার্থীকে যদি কোন
ইয়ারে ফেইল না করেও অনার্স/
ডিগ্রী সম্পন্ন করতে ৭টি বছর খরচ
করতে হয়, তার পরও যদি সে তার
চাকরি সম্পর্কে নিশ্চিত
হতে না পারে তবে দিশেহারা না হয়ে
উপায় কি???
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়া অগণিত
শিক্ষার্থীদের বিষয়ে শিক্ষাবিদদের
আরেকটু
সহানুভূতি নিয়ে ভাবা অতি জরুরি।

উত্তর প্রদান করেছেন New User (15 পয়েন্ট)

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

+2 টি ভোট
1 উত্তর

 

(হেল্পফুল হাব এ রয়েছে এক বিশাল প্রশ্নোত্তর ভান্ডার। তাই নতুন প্রশ্ন করার পূর্বে একটু সার্চ করে খুঁজে দেখুন নিচের বক্স থেকে)

(হেল্পফুল হাব সকলের জন্য উন্মুক্ত তাই এখানে প্রকাশিত প্রশ্নোত্তর, মন্তব্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর)

...