বাংলায় সর্বপ্রথম, সর্ববৃহৎ ও সর্বাধিক জনপ্রিয় প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক ও সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন একদম বিনামূল্যে এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন। রেজিস্ট্রেশান না করেই অংশগ্রহণ করতে পারবেন তবে, সর্বোচ্চ সুবিধার জন্য বিনামূল্যে রেজিস্ট্রেশান করুন!

> বাংলা ভাষায় সর্বপ্রথম সম্পূর্ণ প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক এবং সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন।

Welcome to Helpful Hub, where you can ask questions and receive answers from other members of the community.

15k টি প্রশ্ন

16.7k টি উত্তর

5.8k টি মন্তব্য

6.3k জন নিবন্ধিত

+2 টি ভোট
1.4k বার প্রদর্শিত

ফেসবুকে বা অনলাইনে একটি অপরিচিত ছেলে ও মেয়ে চ্যাট করলে কি তা হারাম হবে? ইসলাম ধর্ম অনুসারে ব্যাখ্যা করবেন।

"ধর্ম ও বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন

5 উত্তর

+1 টি ভোট

Chat মানেই মূলত কাজের কথার বাইরে অন্য প্রসঙ্গে আলাপ করা| আর তাই এটা খুব সহজেই হারাম হবে| কারণ মনের উপর নিয়ন্ত্রণের নিশ্চয়তা দেওয়া বেশ কঠিন কাজ আর যারা মনের উপর ভালোভাবে নিয়ন্ত্রণ আরোপ করতে পারেন তাদের চ্যাট করার ইচ্ছা হবে বলে মনে হয় না|

 

 

Signature:

"সৎ কাজ করার চেয়ে সৎ সঙ্গ অধিক উত্তম।"
উত্তর প্রদান করেছেন Expert Senior User (6.4k পয়েন্ট)

চ্যাট শব্দের অর্থ দাঁড়ায় অন্য রকম। আর এর মধ্যে ফেসবুককে টেনে আনা সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। ফেসবুককে বিতর্কিত করার অপচেষ্টা। ফেসবুককে যদি কেউ খারাপ কাজে ব্যবহার করে তাহলে সেই দায় ফেসবুকের না। দুইদিন পর দেখা যাবে একদল মানুষ বলবে ফেসবুক হারাম।

ju111 ভাই কিছু মনে করবেন না। আপনি অনেক অভিজ্ঞ, অনেক কিছু জানেন। আপনি সাধারণত খুব ভালো উত্তর দিয়ে থাকেন। আসলে এত কিছু লেখার উদ্দেশ্য হচ্ছে আপনার উত্তরের বিপক্ষে কথা বলছি তাই।
"Chat মানেই মূলত কাজের কথার বাইরে অন্য প্রসঙ্গে আলাপ করা" । আপনার দেয়া এই উক্তিটি আপনার সাথে যায় না। অনেক অফিসিয়াল কাজ Teamviewer বা এ জাতীয় সফটওয়্যার দিয়ে করা হয়, প্রয়োজনে চ্যাটও করা হয়। Chat এর মাধ্যমে তো আমরা অনেকের সাথে কথা বলি। খবর নেই। শুভ কামনা করি।
কিন্তু সরাসরি আপনি কিভাবে বললেন Chat মানেই মূলত কাজের কথার বাইরে অন্য প্রসঙ্গে আলাপ করা!
আর অপরিচিত মেয়ের সাথে চ্যাট করা মানেই তা হারাম হবে কোন যুক্তিতে?
টেক্সট চ্যাট করলে কেউ কারো ছবি / চেহারা দেখছে না, কন্ঠ শুনছে না।
হ্যাঁ যদি অশালীন কথা বার্তা হয় সেটা হারাম হতে পারে, তবে তা চ্যাটেই হোক, মোবাইল ফোনেই হোক বা আগের দিনের চিঠিতেই হোক।

Shamuk ভাই, চ্যাট এর অর্থ আড্ডা মারা। আড্ডা শব্দের অনলাইন ভার্সন হচ্ছে চ্যাট। আপনি চাইলেই অনলাইনে যে কোন অপরিচিত মেয়ের সাথে আড্ডা মারতে পারেন না। কিংবা কোন মেয়েরা ছেলেদের সাথে আড্ডা মারতে পারবে না। আপনি যা বোঝাচ্ছেন ব্যাপারটা তা না। চ্যাট মানেই যোগাযোগ করা না। সুতরাং কেউ যদি ফেসবুক বা অন্য যে কোন মাধ্যম দিয়ে মেয়েদের সাথে প্রয়োজনে যোগাযোগ করে সেটা আলাদা কথা কিন্তু চ্যাট করা হারামের পর্যায়ে পড়বে। চ্যাট আর টেক্সট এক জিনিস না। চ্যাট অনেক রকমের হতে পারে। ভয়েজ চ্যাট, টেক্সট চ্যাট, ভিডিও চ্যাট। যার মানে দাঁড়ায়, লেখা বিনিময়ের মাধ্যমে আড্ডা, ভয়েজ বিনিময়ের এর মাধ্যমে আড্ডা, ভিডিও বিনিময়ের মাধ্যমে আড্ডা।
ডিকশনারি অনুযায়ী চ্যাট এর অর্থঃ খোশগল্প করা বা বন্ধুত্ব পাবার জন্য বা নিছক আমোদের জন্য কারো সাথে খোশগল্প করা।
তাই আমার মনে হয় ju1111 ভাই ঠিকই বলেছেন। উনার যুক্তি ঠিক আছে তবে উনি বিস্তারিত উল্লেখ করেননি। আমি মনে হয় আপনাকে যুক্তিটা বোঝাতে সক্ষম হয়েছি। আপনার কিছু বলার থাকলে অবশ্যই জানাবেন। আলোচনা হওয়াটা দোষের নয়।

"Chat" শব্দটার বাংলা অর্থ হলঃ খোশগল্প করা, বন্ধুত্ব পাবার জন্য বা নিছক আমোদের জন্য কারো সাথে খোশগল্প করা। আর Oxford English Dictionary - এর অর্থটাকে বাংলায় করলে অনেকটা এরকম হয় - কারোর সাথে অনানুষ্ঠানিক পদ্ধতিতে বন্ধুসুলভভাবে কথা বলা।


সাধারণত খোশগল্প করার সময় কোন কাজের কথা বলতে বা জানাতে হলে অনেকেই বলে থাকেন, "একটা কাজের কথা বলি" বা "কাজের কথায় আসা যাক....."। তাই, "Chat" শব্দটার ঐরকম অর্থ লিখেছি। বিষয়টা হালাল হবে কিনা সেটার প্রতি আলোকপাত করেছি আমি। যেহেতু আল্লাহ পুরুষদেরকে মহিলাদের অভিভাবক হিসেবে বাছাই করেছেন তাই স্বাভাবিকভাবেই শালীনতা রক্ষার ব্যাপারে পুরুষদেরকে আগে বলেছেন দৃষ্টিকে নত রাখতে, আর হাদীস শরীফে নবী (সঃ) বলেছেন ইচ্ছাকৃতভাবে নারীদেরকে না দেখতে। তাই প্রয়োজনের বাইরে অপরিচিত নারীদের সাথে পুরুষদের কথা বলা, দেখা করা, বা যোগাযোগ করা অবশ্যই হারাম; তা সে যে ফরম্যাটেই হোক (এমনকি ইশারা ভাষাতেও)। একই কথা নারীদের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। উত্তর দেওয়ার সময় কোন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বিষয়টা মাথাতেই আনিনি।

ভাই এত সুন্দর করে ব্যাখ্যা করার জনেয় আপনাদের ধন্যবাদ। আমি ফেসবুকটা উদাহরন হিসাবে দিছি। আসলে আমার মূল প্রশ্ন ছিল চ্যাট নিয়ে।

  অবশ্যই হারাম হবে যদি না আপনি কাজ ছাড়া, অসৎ উদ্দেশ্যে করে থাকেন।

0 টি ভোট

Chat এর মাধ্যমে তো আমরা অনেকের সাথে কথা বলি। খবর নেই। শুভ কামনা করি। তাই এটা হারাম নায়

 

 

Signature:

A.S.Chowdhury Raiyan
উত্তর প্রদান করেছেন (-27 পয়েন্ট)

দুঃখিত আপনার উত্তর আমার ভাল লাগেনি। অনেকটা ব্লগ দিয়ে ইন্টারনেট চালানোর মতন উত্তর হয়ে গেল। আমি বলেছিলাম অপরিচিতদের কথা। পরিচিতদের তো আমরা খবর নিতেই পারি।

0 টি ভোট

এ বিষয়ক ইসলামী ফিকহের একটি মূলনীতি বলিঃ- 'সকল হারাম কাজের প্রস্তাবনা'ও ( ভুমিকা , শুরু কাজ ) হারাম ''  আপনার প্রশ্নের তিনটি অংশ । ১)অপরিচিত মেয়ের সাথে ২) ফেসবুকে ৩) চ্যাট  ।। আসুন বিশ্লেষণ করি । ১) অপরিচিত মেয়ে মাত্রই গাইরে মাহরাম  অর্থাৎ বিবাহ করা বৈধ ।। এরকম মহিলাদেরকে সাক্ষাতে সালাম দেয়া যাবে কিনা ?? উত্তরঃ-- ফিতনার আশংখা থাকলে সালাম দেয়া হারাম ।। ২) ফেসবুক কি তা বিশ্লেষণের অপেক্ষা রাখে না ।। তবে ফেসবুকের ফ্রেন্ড লিস্টের দুই প্রান্তে থাকা পুরুষ ও মহিলা বন্ধু  কি চ্যাটের মাধ্যমে  কোন স্থানে সাক্ষাত  বা উপস্থিত থাকার হুকুম রাখে ?  অবশ্যই ।। যেহেতু তাদের সকল গোপনীয়তা বজায় থাকে ।। ৩) চ্যাঁট শব্দের শাব্দিক অর্থ  হচ্ছেঃ- খোস গল্প বা আড্ডা । তবে ফেসবুকে চ্যাট ব্যাবহারিক অর্থে প্রয়জনিয় বার্তা আদান প্রদানকেও  অন্তর্ভুক্ত করে ।   এবার আসুন জানতে চেষ্টা করি ,  উপরোক্ত বিশ্লেষণের প্রেক্ষিতে  আলোচ্য বিষয়ে  ইসলামি ফিকহের দৃষ্টিভঙ্গি কি ??? ১) অপরিচিত মেয়ের সাথে ফেসবুকে চ্যাঁট ফিতনার আশংখা আছে এমতাবস্থায় সম্পূর্ণ হারাম ।। ২) ফিতনার আশংখা নেই এমতাবস্থায় হারাম নয় ।। দাঁড়ান , আস্তে হাঁটুন ।। ফিতনার আসংখা যে নেই এই যুগে সেই নিশ্চয়তা আপনাকে কে দিল ??? মন বা আপনার প্রবিত্তি ?? অতএব প্রমাণিত হলঃ- #অপরিচিত মেয়ের সাথে ফেসবুকে চ্যাট = হারাম ।।  #দলীলঃ-  সেই মূলনীতি 'সকল হারাম কাজের প্রস্তাবনা'ও ( ভুমিকা , শুরু কাজ ) হারাম '' ।।

উত্তর প্রদান করেছেন (-10 পয়েন্ট)
চমৎকার বিশ্লেষণ। ধন্যবাদ আপনাকে।
ধন্যবাদ আল আযহার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসার দের । যাঁদের কাছে এই বিশ্লেষণ শিখেছি ।
0 টি ভোট

জবাব: وعليكم السلام ورحمة الله وبركاته

যদি একান্ত প্রয়োজন হয়, সেই সাথে গোনাহে লিপ্ত হবার সম্ভাবনা না থাকে, তাহলে পরনারীর সঙ্গে ফেসবুকে অডিও কলের মাধ্যমে কথা বলা কিংবা চ্যাট করা জায়েয আছে। বিনাপ্রয়োজনে জায়েয হবে না।

আল্লাহ তাআলা বলেন ,

وَإِذَا سَأَلْتُمُوهُنَّ مَتَاعًا فَاسْأَلُوهُنَّ مِن وَرَاء حِجَابٍ ذَلِكُمْ أَطْهَرُ لِقُلُوبِكُمْ وَقُلُوبِهِنَّ

’’আর তোমরা তাঁর [রাসূলুল্লাহ এর] স্ত্রীগণের কাছে কিছু চাইলে পর্দার আড়াল থেকে চাইবে। এটা তোমাদের অন্তরের জন্য এবং তাঁদের অন্তরের জন্য অধিকতর পবিত্রতার কারণ।‘’ (সূরা আহযাব-৫৩)

বিখ্যাত তাফসীরবিদ ইমাম কুরতুবী রহ. উক্ত আয়াতের আলোচনায় বলেন,

في هذه الآية دليل على أن الله تعالى أذن في مسألتهن من وراء حجاب ، في حاجة تعرض ، أو مسألة يستفتين فيها ، ويدخل في ذلك جميع النساء بالمعنى ،  .

‘উক্ত আয়াতে আল্লাহ তাআলা রাসূলুল্লাহ এর স্ত্রীদের কাছে কোনো প্রয়োজনে পর্দার আড়াল থেকে কিছু চাওয়া বা কোনো মাসআলা জিজ্ঞাসা করার অনুমতি দিয়েছেন। সাধারণ নারীরাও উপরোক্ত হুকুমের অন্তর্ভুক্ত।’ (তাফসীরে কুরতুবী ১৪/১২২৭)

কিন্তু গোনাহে লিপ্ত হবার সম্ভাবনা থাকলে জায়েয নেই। কেননা রাসূল ইরশাদ করেন,

اَلْعَيْنَانِ زِنَاهُمَا النَّظْرُ وَالْاُذُنَانِ زِنَاهُمَا الْاِسْتِمَاعُ وَاللِّسَانُ زِنَاهُمَا الْككَلَامُ وَالْيَدُ زِنَاهُمَا الْبَطْشُ وَالرِّجْلُ زِنَاهُمَا الخُطَا وَالْقَلْبُ يَهْوِىْ وَيَتَمَنَّى وَيُصَدِّقُ ذَالِكَ الْفَرْجُ اَوْ يُكَذِّبُه

‘’দুই চোখের ব্যভিচার হল হারাম দৃষ্টি দেয়া, দুই কানের ব্যভিচার হল পরনারীর কণ্ঠস্বর শোনা, জিহবার ব্যভিচার হল, [পরনারীর সাথে সুড়সুড়িমূলক] কথোপকথন। হাতের ব্যভিচার হল পরনারী স্পর্শ করা, পায়ের ব্যভিচার হল গুনাহর কাজের দিকে পা বাড়ান, অন্তরের ব্যভিচার হল কামনা-বাসনা আর গুপ্তাঙ্গঁ তা সত্য অথবা মিথ্যায় পরিণত করে।” (সহীহ মুসলিম ২৬৫৭, মুসনাদে আহমাদ ৮৯৩২)

والله اعلم بالصواب
উত্তর দিয়েছেন
মাওলানা উমায়ের কোব্বাদী নকশবন্দী
সূত্রঃ http://quranerjyoti.com
পূর্বে উত্তর প্রদান করেছেন Junior User (87 পয়েন্ট)
0 টি ভোট

হারাম

পূর্বে উত্তর প্রদান করেছেন New User (9 পয়েন্ট)

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

+1 টি ভোট
5 টি উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
31 অগাস্ট 2013 "ধর্ম ও বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাত সদস্য
+1 টি ভোট
2 টি উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর
0 টি ভোট
5 টি উত্তর

 

(হেল্পফুল হাব এ রয়েছে এক বিশাল প্রশ্নোত্তর ভান্ডার। তাই নতুন প্রশ্ন করার পূর্বে একটু সার্চ করে খুঁজে দেখুন নিচের বক্স থেকে)

(হেল্পফুল হাব সকলের জন্য উন্মুক্ত তাই এখানে প্রকাশিত প্রশ্নোত্তর, মন্তব্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর)

...