বাংলায় সর্বপ্রথম, সর্ববৃহৎ ও সর্বাধিক জনপ্রিয় প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক ও সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন একদম বিনামূল্যে এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন। রেজিস্ট্রেশান না করেই অংশগ্রহণ করতে পারবেন তবে, সর্বোচ্চ সুবিধার জন্য বিনামূল্যে রেজিস্ট্রেশান করুন!

> বাংলায় সর্বপ্রথম, সর্ববৃহৎ ও সর্বাধিক জনপ্রিয় প্রশ্ন-উত্তরভিত্তিক এবং সমস্যা সমাধানের উন্মুক্ত কমিউনিটি "হেল্পফুল হাব" এ আপনাকে স্বাগত, এখানে আপনি যে কোনো প্রশ্ন করে উত্তর নিতে পারবেন একদম বিনামূল্যে এবং কোনো প্রশ্নের সঠিক উত্তর জানা থাকলে তা প্রদান করতে পারবেন।

Welcome to Helpful Hub, where you can ask questions and receive answers from other members of the community.

14,084 টি প্রশ্ন

15,772 টি উত্তর

5,540 টি মন্তব্য

5,672 জন নিবন্ধিত

21 Online
0 Member And 21 Guest
Today Visits : 14413
Yesterday Visits : 14721
All Visits : 11647230

ওযু করার সময় কুলি করা এবং নাক সাফ করা ২ টাই কি একি সাথে করতে হবে নাকি আলাদা আলাদাভাবে?

0 টি ভোট
100 বার প্রদর্শিত
12 জুন 2014 "ধর্ম ও বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন বাপ্পী

1 উত্তর

0 টি ভোট

অবশ্যই আলাদা আলাদাভাবে। প্রথমে ৩ বার কুলি করবেন গড়গড়াসহ এবং তারপরে নাকে পানি দিয়ে পরিস্কার করবেন।

 

 

Signature:

"সৎ কাজ করার চেয়ে সৎ সঙ্গ অধিক উত্তম।"
12 জুন 2014 উত্তর প্রদান করেছেন ju1111 Expert Senior User (6,148 পয়েন্ট)

এই সম্পর্কে দলীল জানলে বলতে পারবেন।আমি শুনেছি এক জায়গায় রাসুলুল্লাহ (সাঃ) ডান হাতে পানি নিয়ে অর্ধেক পানি দিয়ে কুলি করতেন বাকি অর্ধেক পানি দিয়ে নাক পরিষ্কার করতেন, অর্থাৎ কুলি করা ও নাক ধোয়া একই সাথে করতেন।
আবু দাউদঃ ২৩৬৬, তিরমিযীঃ ৭৮৮।

অযূ করার মূল উদ্দেশ্য হল পবিত্রতা অর্জন করা। এখন কুলি করা ও নাকে পানি দেয়া একইসাথে করলে মুখে যদি নাকের ময়লা প্রবেশ করে সেটা কি পবিত্রতা অর্জনে সহায়ক হবে (অর্থাৎ নাকের ময়লা মুখে যাওয়ার সুযোগ থেকে যাচ্ছে)? নীচে তিরমিযী শরীফের বাংলায় অনুবাদ করা সংস্করণ থেকে উদ্ধৃতি দিলামঃ

হান্নাদ ও কুতায়বা (রঃ) .........আবূ হায়্যা (রঃ) থেকে বর্ণনা করেন যে, তিনি বলেনঃ আলী (রাঃ)-কে একদিন উযূ করতে দেখলাম। তিনি প্রথমে কবজা পর্যন্ত দুই হাত খুব পরিস্কার করে ধুইলেন। পরে তিনবার কুলী করলেন। তিনবার নাকে পানি দিলেন, তিনবার চেহারা ধুইলেন, দুই হাত তিনবার ধুইলেন, একবার মাথা মাসহে করলেন এবং গোড়ালির হাড্ডি পর্যন্ত দুই পা ধুই;এন, তারপর তিনি দাঁড়ালেন এবং উযূর অবশিষ্ট পানি নিয়ে তা দাঁড়িয়েই পান করলেন এবং বললেনঃ আমার মনে ইচ্ছে জাগলে যে, রসূল (সাঃ) এর পবিত্রতা অর্জনের পদ্ধতি কী ছিল তা তোমাদের দেখাই।

এই বিষয়ে উছমান, আব্দুল্লাহ ইবন যায়দ, ইবন আব্বাস, আব্দুল্লাহ ইবন আমর, আইশা, রুবায়্যি এবং আব্দুল্লাহ ইবন উনায়স (রাঃ) থেকেও হাদীছ বর্ণিত আছে।

উপরোক্ত হাদীছটি হাসান ও সহীহ।

তিরমিযী শরীফ, ১ম খণ্ড- হাদীছ নং- ৪৮, ইসলামী ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ কর্তৃক অনূদিত।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি ভোট
1 উত্তর
14 জানুয়ারি 2014 "ধর্ম ও বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাত সদস্য
+1 টি ভোট
2 টি উত্তর
0 টি ভোট
1 উত্তর

 

(হেল্পফুল হাব এ রয়েছে এক বিশাল প্রশ্নোত্তর ভান্ডার। তাই নতুন প্রশ্ন করার পূর্বে একটু সার্চ করে খুঁজে দেখুন নিচের বক্স থেকে)

(হেল্পফুল হাব সকলের জন্য উন্মুক্ত তাই এখানে প্রকাশিত প্রশ্নোত্তর, মন্তব্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর)

...